brandbazaar globaire air conditioner

বস রাগী হলে যেভাবে মানিয়ে চলবেন

বস রাগী হলে যেভাবে মানিয়ে চলবেন

আপনার বস হতে পারে প্রচণ্ড রাগী, তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলা আপনার জন্য কঠিন হতে পারে। তার একটি সিদ্ধান্ত আপনার জীবনে অনেক বড় প্রভাব ফেলতে পারে। তবে পেশাগত জীবনে বসের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রেখে চলাই উত্তম। আপনার বস রাগী হলেও তাকে কৌশলে সামলে চলতে হবে। তার সঙ্গে আচরণ এমন হবে যেন সম্পর্কটি রাগারাগির পর্যায়ে না যায়। জেনে নিন কোন আচরণগুলো এক্ষেত্রে কার্যকরী হবে-

তার কথার প্রতি মনোযোগ দিন

প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে বসের মতের সঙ্গে মিল রেখে চলতে হবে। তাই বস যখন কিছু বলবেন, তাকে বুঝতে দিন যে আপনি তার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনছেন। আপনার বস যদি রেগে গিয়েও কথা বলেন তবে আপনি তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া না দেখিয়ে মনোযোগ দিয়ে শুনুন। যদিও এটি কিছুটা কষ্টকর, তবে অসাধ্য নয়। আপনার যদি কিছু বলার থাকে তবে তার বলা শেষ হলে বুঝিয়ে বলতে পারেন।

মতামতের মূল্যায়ন

বসের পরামর্শ অনুযায়ী চললে তার রাগের কারণ হওয়ার দরকার পড়বে না। তিনি যখন দেখবেন যে আপনি তার মতামতের পূর্ণ মূল্যায়ন করছেন তখন আপনার প্রতি রাগের বদলে ইতিবাচক মনোভাব লালন করবেন। তাই আপনি যার অধীনে কাজ করছেন, তার মনের মতো করে কাজগুলো সম্পন্ন করার চেষ্টা করুন। পাশাপাশি নিজের কোনো মতামত থাকলে তা সুযোগ বুঝে বসের সঙ্গে আলাপ করুন। তবে অবশ্যই যখন তিনি রেগে থাকবেন, তখন নয়।

সঠিক শব্দ ব্যবহার

অনেক সময় শব্দের ভুল ব্যবহারে কথার অর্থ অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে যায়। তাই বসের সঙ্গে যেকোনো আলাপ করার সময় সঠিক শব্দ ব্যবহার করুন। তিনি যে কথাগুলো বলছেন তা আপনি বুঝতে পারছেন কি না সেটিও বুঝতে দিন। ইতিবাচক থেকে কথা বলুন। বস রাগী হলেই তাকে সারাক্ষণ শত্রু ভাববেন না। কারণ আপনারা দুজন একই প্রতিষ্ঠানের কর্মী। সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক না থাকলে কাজ এগিয়ে নেওয়া মুশকিল হয়ে যাবে। তার সঙ্গে কথা বলার সময় নেতিবাচক শব্দ পরিহার করুন।

দুঃখ প্রকাশ করুন

অনেক সময় বস রাগারাগি করলেও তার জন্য হয়তো আপনার আচরণই দায়ী। তাই তাকে উত্তেজিত করার জন্য ক্ষমাপ্রার্থী হোন। যদি আপনি ভুল করে থাকেন, তাহলে এটি কাজ করবে। যদি ভুল না করে থাকেন তবুও এটি কাজ করবে কারণ তিনি আপনার কাছে এটি প্রত্যাশা করছে। দুঃখ প্রকাশ বা ক্ষমা চাওয়ার অভ্যাস আপনাকে আরও পরিপূর্ণ হতে সাহায্য করবে।

জিজ্ঞাসা করুন

বস যখন শান্ত থাকবেন তখন তার সঙ্গে কথা বলুন এবং জিজ্ঞাসা করুন আপনি কীভাবে কাজ করলে তা সঠিক হবে। যদি তিনি কোনো পরামর্শ না দেন, তাহলে আপনি আপনার উপায়গুলো সবচেয়ে ভালোভাবে বোঝান। একবার তিনি সেগুলোর যেকোনো একটিতে একমত হয়ে গেলে সেই কাজে লেগে পড়ুন। আপনার বস নিঃসন্দেহে আপনার থেকে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন। তাই আপনার বুদ্ধিমত্তা এবং তার অভিজ্ঞতার সমন্বয় ঘটলে তার ফল ইতিবাচক হবে।

 

 

Related posts

body banner camera