brandbazaar globaire air conditioner

হাওরে নববধূকে গণধর্ষণ : দুই আসামি রিমান্ডে

হাওরে নববধূকে গণধর্ষণ : দুই আসামি রিমান্ডে

হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার টিক্কা হাওরে স্বামীকে বেঁধে রেখে নববধূকে গণধর্ষণের মামলায় দুই আসামির দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার (০৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আসমা বেগম এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মো. হাফিজুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত শুক্রবার (০৩ সেপ্টেম্বর) মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মহিউদ্দিন আসামি রনি ও শুভর পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। সোমবার আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আসমা বেগম শুনানি শেষে দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট উপজেলার মোড়াকরি গ্রামের এক যুবক তার নববধূকে নিয়ে টিক্কা হাওরে ঘুরতে যান। হাওরের মাঝখানে যাওয়া মাত্রই একই গ্রামের মুছা মিয়ার নেতৃত্বে আট যুবক তাদের নৌকায় উঠে দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। পরে নির্জন স্থানে নিয়ে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করে। বিষয়টি কাউকে জানালে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে হুমকি দেয়।

ঘটনার পর স্বামী-স্ত্রী ভয়ে বিষয়টি গোপন রাখেন। গত বুধবার (০১ সেপ্টেম্বর) স্ত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বামী। ঘটনার পর সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে নববধূর স্বামীর নিকট ৯ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন আসামিরা। অবশেষে তিনি নিরুপায় হয়ে বৃহস্পতিবার (০২ সেপ্টেম্বর) হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এ মামলা করেন। ওই মামলায় এখন পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও র‌্যাব।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলার মুড়াকরি গ্রামের ইকবাল হোসেন ছোট্টু মিয়ার ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সোলায়মান হোসেন রনি (২২), একই গ্রামের রুকু মিয়ার ছেলে শুভ মিয়া (১৯) ও ইব্রাহীম মিয়ার ছেলে মিঠু মিয়া (২৩), উপজেলার মোড়াকরি গ্রামের পাতা মিয়ার ছেলে হৃদয় মিয়া (২২), বকুল মিয়ার ছেলে সুজাত মিয়া (২৩) ও মিজান মিয়ার ছেলে জুয়েল মিয়া (২৫)।

Related posts

body banner camera